সব খবর সবার আগে
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সারাদেশ

বান্দরবানে শুকিয়ে যাচ্ছে ঝিরি-ঝরনা, বাড়ছে পানির সংকট

প্রতিবছর ২২ মার্চ বিশ্ব পানি দিবস হিসেবে পালিত হয়। বিশ্বের অন্যসব দেশের মতো বাংলাদেশেও ভূগর্ভস্থ পানি: অদৃশ্য সম্পদ, দৃশ্যমান প্রভাব এই প্রতিপাদ্য নিয়ে পালিত হলো দিবসটি। অথচ সেই বাংলাদেশের বান্দরবান পার্বত্য জেলার পাহাড়ি অঞ্চলে রুমা-থানচি রোডে চিম্বুক পাহাড় রেঞ্জ এলাকায় তীব্র পানি সংকট দেখা দিয়েছে।

0 156

মেনলুং পাড়া, বাগান পাড়া, রামারি পাড়া, রিয়ামনই পাড়া, মেনসিং পাড়া, ক্রাপু পাড়া, দলিয়াম পাড়া, এনরা পাড়া, বাবলা হ‍েডম‍্যান পাড়া, পাতুই পাড়া, বসন্ত পাড়াসহ মোট ১১০টি পাড়ায় অন্তত ৮০০ ম্রো পরিবারের প্রায় ২ হাজার মানুষ পানি সংকটে।

শুকিয়ে গেছে ঝিরি ঝরনা পানির সংকটে পাহাড়িরা। বান্দরবান জেলার বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট। বান্দরবান চিম্বুক, নীলগিরি, থানছি সড়কের দুই পাশে ১১০ টি ম্রো পাড়াসহ রোয়াংছড়ি, রুমা, থানছি,আলীকদম,লামা উপজেলার দূর্গম এলাকার পাহাড়ি পল্লীগুলোতে বিশুদ্ধ পানির সংকট আরও বেশি।

সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা গেছে, বান্দরবানের বিভিন্ন উপজেলার পাড়া বসতি নিকটবর্তী পানির উৎসগুলো শুকিয়ে গেছে। কোথাও চলতে চলতে ঝিরির শেষ মাথায় গর্তে অল্প পানি জমা আছে। সেখানে থেকেই বিভিন্ন পাড়ার ম্রো নারীরা পানি সংগ্রহ করছেন।এর মধ্যে অনেক জায়গায় পাথর উত্তোলন করে পানি উৎস ধ্বংস করা হয়েছে। আর যেসব ছোট্ট ছোট্ট খালে অল্প পানি আছে সেখানে হাতি দিয়ে গাছ টানার কারণে হাতির মলমূত্রে খালের পানি দূষিত হয়ে ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।রুমা-থানচি রোডে চিম্বুক পাহাড় রেঞ্জ এলাকার মেনলুং পাড়া, বাগান পাড়া, রামারি পাড়া, রিয়ামনই পাড়া, মেনসিং পাড়া, ক্রাপু পাড়া, দলিয়াম পাড়া, এনরা পাড়া, বাবলা হ‍েডম‍্যান পাড়া, পাতুই পাড়া, বসন্ত পাড়াসহ কমপক্ষে ১১০টি পাড়ায় মানুষ পানি সংকটে।


ম্রোলং পাড়ার বাসিন্দা বিজিসি ট্রাস্ট মেডিকেল কলেজের নাসিংয়ের শিক্ষাথী চামলে ম্রো বলেন,ঝিরি থেকে পানি আসতে আসা যাওয়ার দেড় ঘন্টা সময় লাগে। ভোর ৪ টায় পানি আনতে গিয়ে সকাল ৬ টায় সময় পাড়ায় ফিরে আসা যায়। দুই-এক মগ পানি নেওয়ার পর ৮-১০ মিনিট পানির জন্য অপেক্ষা করতে হয়। বয়স্কনারী রা রাত দুই-তিন টার সময় পানি আনতে যান। একসঙ্গে সবাই গেলে পানি পাওয়া যায় না তাই প্রতিবার দুইজন করে পানি আনতে যেতে হয়। এই ঝিরির পানি শুকিয়ে গেলে আরও দূরে একটি ঝিরি আছে।সেখানে কাঁকড়ার গর্ত খুড়ে খুড়ে পানি সংগ্রহ করতে হয়।

ম্রোলং পাড়ার বাসিন্দা (৬১) বছরের নারী হাই প্লেম ম্রো বলেন, শুল্ক মৌসুমের সময় পাড়ার নারীদের অন্যান্য কাজ বাদ দিয়ে শুধু নিরাপদ পানি সংগ্রহ করতেই অধিকাংশ সময় ব্যয় করতে হয়। বর্তমানে ২৬ টি পরিবারের ম্রোলং পাড়ার প্রতি বছর জানুয়ারি থেকে মে মাস পর্যন্ত পানির তীব্র সংকট থাকে পাড়ার নারীদের পরিবারের দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় পানির জন্য খুব কষ্ট করতে হয়।

ক্রামাদি পাড়ার তুমপিয় ম্রো বলেন, কেউ একবার পানি আনার পর তিন ঘণ্টা পরে আরেকজন পানি পায়। সেজন্য ঝিরির কুয়াতে আসার আগে পাড়াতে জিজ্ঞাসা করতে হয়কুয়াতে কেউ গেছে কি না, কিংবা কে কখন পানি আনতে গিয়েছিল। জিজ্ঞাসা না করে ঝিরিতে গেলে দুই থেকে তিন ঘণ্টা অপেক্ষা করার পর ২০ লিটারের মতো পানি পাওয়া যায়।

সুয়ালক ইউনিয়নের আমতলী মারমা পাড়ার কারবারি মং প্রু সাইন মারমা বলেন, পাড়ায় তাদের ১৫০টি পরিবার, তঞ্চঙ্গ্যা আমতলী পাড়া, মাঝের পাড়া, হেডম্যান পাড়াসহ ৫০০ পরিবার শুষ্ক মৌসুমে সুয়ালক খালের ওপর নির্ভরশীল। কোনো রকম গোসল করা যায়, সমস্যা বাধে খাওয়ার পানি নিয়ে, সুয়ালক খালের পাড়ে পাত কুয়া তৈরি করে সেখান থেকে পানি সংগ্রহ করে পানি পান করতে হয়। দ্বিতীয় আর কোনো উপায় নেই, তাই শিশু, যুব, বয়স্কদের দৈনিক ৪-৫ বার পাত কুয়া থেকে পানি সংগ্রহ করে
একই পাড়ার পাকু ম্রো বলেন, ইটভাটার কাঠ নেওয়ার এবং অবৈধ কাঠ ব্যবসায়ীদের কারণের বনাঞ্চল উজাড় করা হয়েছে। ঝিরি কারণগুলো থেকে অবাধে পাথর উত্তোলন করার কারণে এবং আবহাওয়া পরিবর্তন হওয়াতে সময়মতো বৃষ্টি না হওয়ার পানি সংকট তৈরি হয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

বান্দরবান জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নিবার্হী প্রকৌশলী অনুপ কুমার দে বলেন, পাহাড়ে অপরিকল্পিত ভাবে ঝিরির পাশে তথা পানির উৎসব পাশে গাছ কেটে ফেলার কারণে ঝিরি ও ঝরনার পানি শুকিয়ে যাচ্ছে। এর ফলে পানির লেয়ার ও মাটির অনেক নিচে নেমে যাওয়ার পাহাড়ে দ্রুত পানি শুকিয়ে যাচ্ছে। তাছাড়া পাহাড়ের মাটির গর্তে পাথর থাকার গভীর নলকূপ বসনোর সুযোগ নাই। সেখানে রিংওয়েল এবং যেসব ঝিরিতে শুল্ক মৌসুমে পানি থাকে বরাদ্দ সাপেক্ষে জিএফএস পদ্ধতিতে পাহাড়ি সরবরাহ করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। চিম্বুক এলাকায় ম্রোসহ বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর জন্য নিরাপদ পানির কার্যক্রম চলমান রয়েছে বলে জানান তিনি।

সর্বশেষ খবর এবং আপডেটের জন্য আমাদের সাবস্ক্রাইব করুন। আপনি যেকোনো সময় বন্ধ করতে পারবেন।

Loading...

আমরা কুকি ব্যবহার করি যাতে অনলাইনে আপনার বিচরণ স্বচ্ছন্দ হয়। সবগুলো কুকি ব্যবহারের জন্য আপনি সম্মতি দিচ্ছেন কিনা জানান। হ্যাঁ, আমি সম্মতি দিচ্ছি। বিস্তারিত